দেশের ১০ জেলায় ২৭ ‘রেড জোন’ ঘোষণা

0
86

গ্লোবালভিশন ডেস্ক: করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দেশের ১০ জেলার ২৭ এলাকাকে ‘রেড জোন’ হিসেবে ঘোষণার পর সেখানে সাধারণ ছুটি দেয়া হয়েছে। রোববার মধ্যরাতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

জেলাগুলো হলো– চট্টগ্রাম, বগুড়া, চুয়াডাঙ্গা, মৌলভীবাজার, নারায়ণগঞ্জ, হবিগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, কুমিল্লা, যশোর ও মাদারীপুর।

প্রজ্ঞাপন অনুসারে, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ওয়ার্ড নং-১০, উত্তর কাট্টলি(বিসিক শিল্প নগরী ব্যতিত) এলাকা গত ১৭ জুন রেডজোন ঘোষণা করা হয়েছে। রোববার থেকে আগামী ৮ জুলাই পর্যন্ত সেখানে সাধারণ ছুটি থাকবে।

বগুড়ার পৌরসভার চেলোপাড়া, নাটাইপাড়া, নারুলী, জলেশ্বরীতলা, সূত্রাপুর, মালতিনগর, ঠনঠনিয়া, হাড়িপাড়ি ও কলোনি এলাকা রেডজোন ঘোষণা করা হয়েছে। গত ১৪ জুন সেখানে রেডজোন ঘোষণা করা হয়। আগামী ৫ জুলাই পর্যন্ত এ এলাকায় সাধারণ ছুটি থাকবে।

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলাধীন দর্শনা পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের পুরানপুর গ্রামের রিফিউজি কলোনি ও ৭ নম্বর ওয়ার্ডের থানা পাড়া এলাকায় ঘোষিত রেডজোনে রোববার থেকে ৮ জুলাই পর্যন্ত সাধারণ ছুটি থাকবে।

মৌলভীবাজারের রেডজোন হল– শ্রীমঙ্গল উপজেলাধীন শ্রীমঙ্গল ইউনিয়নের ক্যাথলিক মিশন রোড, রূপশপুর, সবুজবাগ, মুসলিমনগর, লালবাগ, বিরাইমপুর এবং শ্রীমঙ্গল পৌরসভার কালীঘাট রোড ও শ্যামলী এলাকা, কুলাউড়া উপজেলাধীন বরমচাল ইউনিয়নের নন্দননগর, কাদিপুর ইউনিয়নের মনসুর এবং কুলাউড়া পৌরসভার মাগুর ও মনসুর এলাকা। গত ১৪ জুন ঘোষিত এই রেডজোনে আগামী ৫ জুলাই পর্যন্ত সাধারণ ছুটি থাকবে।

নারায়ণগঞ্জের রুপগঞ্জ উপজেলার রুপগঞ্জ ইউনিয়নে (উত্তরে বালু ব্রিজ, দক্ষিণে কায়েতপাড়া, পূর্বে কায়েতপাড়া এবং পশ্চিমে কাঞ্চন পৌরসভা) গত ১৮ জুন রেডজোন ঘোষণা করা হয়েছিল। আগামী ২ জুলাই পর্যন্ত ওই অঞ্চলে সাধারণ ছুটি থাকবে।

হবিগঞ্জ পৌরসভার ৬ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ড, চুনারুঘাট উপজেলার ৩ নম্বর দেওরগাছ ইউনিয়ন, ৭ নম্বর উবাহাটা ইউনিয়ন ও ৯ নম্বর রানীগাঁও ইউনিয়ন এবং চুনারুঘাট পৌরসভা, আজমিরীগঞ্জ উপজেলার ১ নম্বর আজমিরীগঞ্জ সদর ইউনিয়ন ও মাধবপুর পৌরসভা এলাকায় সাধারণ ছুটি থাকবে আগামী ৯ জুলাই পর্যন্ত।

মুন্সিগঞ্জের পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের অধীন মাঠপাড়া এলাকায় গত ১৭ জুন রেডজোন ঘোষণা করা হয়েছিল। আগামী ৯ জুলাই পর্যন্ত সেখানে সাধারণ ছুটি বহাল থাকবে।

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের অন্তর্গত ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কালিয়াজুরি, রেইসকোর্স, শাসনগাছা, ১০ নম্বর ওয়ার্ডের ঝাউতলা, কান্দিরপাড়, পুলিশ লাইন, বাদুরতলা, ১২ নম্বর ওয়ার্ডের নানুয়ার দিঘীর পাড়, নবাব বাড়ি চৌমুহনী, দিগাম্বরীতলা ও ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের টমছম ব্রিজ, থিরাপুকুরপাড় ও দক্ষিণ চর্থা এলাকায় সাধারণ ছুটি থাকবে ৩ জুলাই পর্যন্ত। গত ১৬ জুন এসব এলাকায় রেডজোন ঘোষণা করা হয়েছিল, যা কার্যকর করা হয় ১৯ জুন থেকে।

যশোরের অভয়নগর উপজেলাধীন চলিশিয়া, পিয়ারা ও বাঘুটিয়া ইউনিয়ন এবং অভনগর পৌরসভার ২, ৪, ৫, ৬, ও ৯ নম্বর ওয়ার্ড এলাকা, চৌগাছা উপজেলার চৌগাছা পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড এলাকা, ঝিকরগাছা উপজেলাধীন ঝিকরগাছা পৌরসভার ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ড এলাকা, কেশরপুর উপজেলাধীন কেশবপুর পৌরসভার ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ড এলাকা, যশোর সদর উপজেলাধীন যশোর পৌরসভার ৪ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড এবং আরবপুর ও উপশহর ইউনিয়ন, শার্শা উপজেলার বেনাপোল পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড ও শার্শা ইউনিয়ন ছুটি থাকবে আগামী ৬ জুলাই পর্যন্ত।

মাদারীপুরের সদর উপজেলার মাদারীপুর পৌরসভার ১, ২, ৩, ৪, ৫, ৬ ও ৭ নম্বর ওয়ার্ড এলাকা ও বাহাদুরপুর, দুধখালী, ঝাউদি, মস্তফাপুর, রাস্তি ও কেন্দুয়া ইউনিয়ন, শিবচর উপজেলার শিবচর পৌরসভার ১, ৪ ও ৫ নম্বর ওয়ার্ড এলাকা এবং শিবচর, দ্বিতীয় খণ্ড, বহেরাতলা দক্ষিণ, বাঁশকান্দি, ভদ্রাসন, কাদিরপুর, মাদবরেরচর ও পাঁচ্চর ইউনিয়ন, কালকিনি উপজেলার কালকিনি পৌরসভার ১, ৪, ৫, ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ড এলাকা এবং ডাসার, গোপালপুর, আলীনগর ও শিকারমঙ্গল ইউনিয়ন ও রাজৈর উপজেলার রাজৈর পৌরসভার ১, ২, ৩, ৫, ৬ ও ৮ নম্বর ওয়ার্ড এবং বদরপাশা, আমগ্রাম, কবিরাজপুর ও হোসেনপুর ইউনিয়নে সাধারণ ছুটি থাকবে ৩০ জুন পর্যন্ত। গত ১৭ জুন এসব এলাকায় লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছিল।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রবণ এই এলাকাগুলোতে ২১ জুন থেকে সাধারণ ছুটি দেয়া হয়েছে; যদিও এর কোনো কোনোটিকে ১৪ জুন থেকে রেড জোন ঘোষণার কথা প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ রয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, লাল অঞ্চল ঘোষিত এলাকায় অবস্থিত সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, আধা-স্বায়ত্তশাসিত, সংবিধিবদ্ধ ও বেসরকারি অফিস, প্রতিষ্ঠান ও সংস্থায় কর্মরত ও অন্য এলাকায় বসবাসরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ক্ষেত্রেও এ ছুটি প্রযোজ্য হবে। জরুরি পরিষেবা এ সাধারণ ছুটির আওতা বহির্ভূত থাকবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here