সরকারের অবহেলাতেই সারাদেশে ছড়িয়েছে করোনা: ফখরুল

0
39

সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সরকারের দুর্নীতির কারণেই করোনাভাইরাস সারাদেশে সংক্রমিত। তাদের চরম অবহেলা, অবজ্ঞা, অজ্ঞানতা এবং তাদের চুরি করার লক্ষ্যের কারণেই আজকে করোনা পরিস্থিতি এই অবস্থায় দাঁড়িয়েছে, সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে।

শুক্রবার উত্তরার নিজের বাসা থেকে ইন্টারনেটের মাধ্যমে সিলেটে ‘এমএ হক স্বাস্থ্যসেবা’ কর্মসূচির উদ্বোধনকালে তিনি এসব বলেন।

হ্জ ক্যাম্পে আইসোলেশনের থাকা প্রবাসীদের প্রসঙ্গ টেনে মির্জা ফখরুল বলেন, সরকারের তরফ থেকে বলা হচ্ছে- বিদেশ থেকে যারা ফেরত আসছেন তাদের স্ক্যানিং টেস্ট করা হচ্ছে। সেই টেস্টে তারা সবাই করোনামুক্ত। অথচ যাত্রীরা বলছেন- তাদের কোনো স্ক্যানিংই হয়নি। এটা সরকারের চরম দায়িত্বহীনতা আর উদাসীনতা। হাজার হাজার মানুষ মৃত্যুবরণ করার পরেও, লক্ষ লক্ষ লোক আক্রান্ত হওয়ার পরেও তারা তাদের ন্যূনতম দায়িত্ব পালন করছে না।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, সরকারের দিকে তাকিয়ে থাকার কোনো দরকার নেই। নিজেদেরকেই চেষ্টা করতে হবে বাঁচার জন্য। করোনাভাইরাস যেনো না ছড়ায়, এই সংক্রামণ যেন না বাড়ে তার জন্য কাজ করতে হবে।

রিজেন্ট হাসপাতালে করোনা পরীক্ষার ভুয়া সার্টিফিকেট সরবারহের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, রিজেন্ট হাসপাতালের প্রধান সাহেদ কোনো পরীক্ষা না করেই করোনা টেস্টের রেজাল্ট দিচ্ছে। এটা তো জীবনের প্রশ্ন। এর পরিণতিতে বিশ্বের সব এয়ারলাইন্সগুলো বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। এটা দেশের অর্থনীতিতেও বড় রকমের প্রভাব পড়বে। এর দায়-দায়িত্ব সম্পূর্ণভাবে সরকারের। এমন বহু ঘটনা আছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের একজন মিঠু নাকি গোটা স্বাস্থ্য অধিদপ্তর গিলে ফেলেছেন।

দেশের বর্তমান পরিস্থিতি থেকে মুক্তির জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এর থেকে মুক্তির একমাত্র পথ হচ্ছে গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করা। যারা আজকে জোর করে ক্ষমতা দখল করে আছে তাদেরকে সরিয়ে দিয়ে সত্যিকার অর্থে জনগণের শাসন প্রতিষ্ঠা করা। এজন্য আমাদের সকলকে একদিকে যেমন কোবিড মোকাবিলা করতে হবে, আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে জনগণের পাশে দাঁড়াতে হবে এবং আমাদের অধিকার, জনগণের অধিকারকে ফিরিয়ে আনতে হবে।

খালেদা জিয়ার চিকিৎসার প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলার সাজা ৬ মাস স্থগিত করে বাসায় রাখা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে যে, তিনি চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে পারবে না। অথচ তার চিকিৎসাটাই এখন বিদেশে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন।

দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য খন্দকার আব্দুল মুক্তাদিরের উদ্যোগে সদ্য প্রয়াত এমএ হকের স্মরণে ‘এমএ হক স্বাস্থ্য সেবা’র এই কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। গত ৩ জুলাই চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য জেলার সাবেক সভাপতি এমএ হক মারা যান।

সিলেট জেলা সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদের ডা. শামীমুর রহমানের সভাপতিত্বে ও মহানগরের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক কয়েস লোদীর পরিচালনায় সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির, কেন্দ্রীয় নেতা সাখাওয়াত হাসান জীবন, কলিম উদ্দিন মিলন প্রয়াত এমএ হকের ছেলে ব্যারিস্টার রিয়াসাদ আজিম হকসহ সিলেটের মহানগর নেতারা বক্তব্য রাখেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here