জেকেজির কর্মকর্তা আরিফুল ৪ দিনের রিমান্ডে

0
28

করোনার টেস্টের নামে প্রতারণার ঘটনায় গ্রেপ্তার জোবেদা খাতুন সার্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা বা জেকেজির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুল চৌধুরীকে চার দিন হেফজাতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি পেয়েছে পুলিশ।

বুধবার আদালতে তিনি ও তার সহযোগী সাইদ চৌধুরীকে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করা হলে মহানগর হাকিম আবু সুফিয়ান মোহাম্মদ নোমান উভয়ের জন্য চার দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গত ২৪ জুন করোনার ভুয়া রিপোর্ট ও নানা বিষয়ে জালিয়াতির মামলায় আরিফুল চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করা হয়। আর রোববার গ্রেপ্তার হন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান, জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের চিকিৎসক আরিফের স্ত্রী ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরী। তাকেও রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

সাবরিনা ও আরিফ চৌধুরীকে শিগগিরই মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ করবে মামলার তদন্ত সংস্থা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

পুলিশ জানিয়েছে, গুলশানের জেকেজির একটি ফ্ল্যাট থেকে এরই মধ্যে ল্যাপটপ জব্দ করা হয়েছে। ওই ল্যাপটপেই করোনা পরীক্ষার নকল রিপোর্ট তৈরি করা হতো। একই ফ্ল্যাট থেকে অনেক যৌন উত্তেজক জিনিসপত্রও পাওয়া যায়।

পুলিশের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, জোবেদা খাতুন সার্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা বা জেকেজি প্রতিষ্ঠানটির নামকরণ করা হয় আরিফ চৌধুরীর নানির নামে। একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান হিসেবে ২০০৬ সালে এটি জয়েন্ট স্টেক থেকে অনুমোদন নেয়।

আরিফ চৌধুরীর সঙ্গে বিয়ের পর ডা. সাবরিনাকে জেকেজির চেয়ারম্যান করা হয়। শুরুতে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক ছিলেন আটজন। ধীরে ধীরে সবাইকে চলে যেতে বাধ্য করেন আরিফ চৌধুরী। এরপর স্বামী-স্ত্রী মিলেই এটি চালাতেন।

পুলিশের একজন কর্মকর্তা জানান, করোনা নিয়ে জেকেজি প্রতারণা করে যে অর্থ হাতিয়েছে মূলত তার ভাগবাটোয়ারাই স্বামী-স্ত্রীর দ্বন্দ্বের কারণ। এ ছাড়া প্রতিষ্ঠানটির একাধিক কর্মীও অবৈধ অর্থের ভাগ চাচ্ছিল।

পুলিশ জানায়, ওভাল গ্রুপ লিমিটেডের সহযোগী প্রতিষ্ঠান জেকেজি। এটি একটি ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট ফার্ম। প্রতিষ্ঠানের প্রধান আরিফুল হলেও চেয়ারম্যান হিসেবে পরিচয় দিতেন সাবরিনা। সাবরিনার মাধ্যমে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন দিবসের কাজ পেয়ে আসছিল ওভাল গ্রুপ। গত বছরের অক্টোবরে ঢাকা এক্সপোর আয়োজন উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনেও ওভালের চেয়ারম্যান হিসেবে বক্তব্য দিয়েছিলেন সাবরিনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here