ফুটবলে ফেরার প্রস্তুতিতে মেয়েরা

0
56

ক্রীড়া প্রতিবেদক: করোনাভাইরাসের কারণে গত মার্চ থেকে বন্ধ দেশের ঘরোয়া সব প্রতিযোগিতা। ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ হয়ে যায় বাফুফের ক্যাম্পে থাকা নারী ফুটবলারদের অনুশীলন। মারিয়া মান্ডা, মনিকা চাকমা, কৃষ্ণা রানী, আঁখি খাতুনরা চলে গেছেন যে যার বাড়িতে। প্রায় চার মাস হতে চলল অনুশীলনে নেই মেয়েরা। দীর্ঘদিন খেলার বাইরে থাকায় তহুরা খাতুন-শামসুন্নাহারদের ফিটনেস লেভেলটা নেমে যাওয়ার কথা। তাই বাড়ির আঙিনায় যাতে অনুশীলন করেন নারী ফুটবলাররা সেই আহ্বান জানিয়েছেন কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন।

তার ডাকে সাড়া দিয়ে ফিটনেস ধরে রাখার মিশনে নেমেছেন আনুচিং-আনাই মোগিনীরা। ফুটবলে ফেরার প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন তারা। করোনায় সবাই ঘরবন্দি। তাই আঁখি খাতুনদের সঙ্গে অনলাইনে যোগাযোগ রাখছেন কোচ ছোটন। তাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখা ছাড়াও ফিটনেস ধরে রাখার পদ্ধতি বাতলে দিচ্ছেন তিনি। তবে মাঠের অনুশীলন আর ঘরে বসে ব্যায়াম এক কথা নয়।

অতীতে দেখা গেছে মেয়েরা কয়েকদিন ছুটি কাটিয়ে বাড়ি থেকে ফিরলেই তাদের ফিটনেস লেভেল নেমে যেত। সেটা উল্লেখ করে কোচ ছোটন বলেন, ‘বাড়িতে ১৫ দিন থাকলেই সবার ফিটনেস লেভেল কমে যায়। সেখানে তিন মাস হতে চলল মেয়েরা অনুশীলনে নেই। ফিটনেস তো অবশ্যই কমেছে তাদের। আমি সবাইকে বলছি, বাড়ির যে উঠান আছে সেখানে ওয়ার্মআপ করতে, রানিং করতে এবং ব্যায়াম করতে। তাতে ফিটনেস লেভেল একটু ভালো থাকবে। আশা করছি, এ সমস্যা কেটে যাবে।’

কোচের এমন নির্দেশের পরই নেমে পড়েছেন মেয়েরা। খাগড়াছড়ি থেকে ওঠে আসা জাতীয় দলে খেলা দুই যমজ বোন আনুচিং ও আনাই মোগিনী গ্রামের বাড়ির মাঠে একসঙ্গে ফিটনেস চর্চা শুরু করে দিয়েছেন। ফরোয়ার্ড আনুচিং মোগিনী বলেন, ‘এতদিন আমরা স্বল্প পরিসরে অনুশীলন করে আসছিলাম। এখন বাফুফে সভাপতি ও কোচের নির্দেশের পর আরও ভালোভাবে অনুশীলন করছি। সকালে বাড়ির কাছের মাঠে গিয়ে ঘণ্টাখানেক অনুশীলন করছি, যাতে করে নিজেদের ফিটনেস ধরে রাখা যায়।’

দুই বোনের মতো অনুশীলন শুরু করে দিয়েছেন ময়মনসিংহের কলসিন্দুর গ্রামের চার ফুটবলার- শামসুন্নাহার সিনিয়র, সানজিদা আক্তার, সাজেদা আক্তার ও নাজমা আক্তার। শামসুন্নাহার বলেছেন, ‘আমরা চারজন সকালে কলসিন্দুর স্কুলের মাঠে অনুশীলন শুরু করেছি। রানিং ও জগিং করেছি। এছাড়া অন্য যারা ফুটবলার আছে, তারাও অনুশীলন শুরু করেছে।’

সেপ্টেম্বরের আগে মেয়েদের একসঙ্গে অনুশীলন করার সম্ভাবনা খুবই কম। এ বছরই বয়সভিত্তিক দুটি নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ হওয়ার কথা। কিন্তু করোনার যে অবস্থা তাতে চলতি বছর মেয়েদের ফুটবল মাঠে গড়ায় কিনা তা নিয়ে অনেকেই সন্দিহান। বৈশ্বিক মহামারির কারণে স্থগিত হয়ে আছে নারী প্রিমিয়ার লীগ। তবে এখন থেকেই মেয়েদের প্রস্তুত থাকতে বলেছে বাফুফে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here