যুক্তরাষ্ট্রে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দুই কোটি ছাড়িয়ে

0
70

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রে এরই মধ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দুই কোটি ছাড়িয়ে থাকতে পারে বলে সর্বশেষ হিসাবে উল্লেখ করেছেন স্বাস্থ্য বিষয়ক কর্মকর্তারা। সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল (সিডিসি) বলেছে, সরকারি হিসাবে যে পরিমাণ মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন তার চেয়ে বাস্তবে আক্রান্তের সংখ্যা ১০ গুণ বেশি হতে পারে। টেক্সাসে নতুন করে সংক্রমণ এবং হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যা বৃদ্ধির ফলে সেখানে সবকিছু খুলে দেয়া স্থগিত করা হয়েছে। এমন সময় স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা এ সতর্কতা দিয়েছেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

সরকারি হিসাব অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্রে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা কমপক্ষে ২৪ লাখ। মারা গেছেন এক লাখ ২২ হাজার ৩৭০ জন। কয়েক দিনে দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে রেকর্ড পরিমাণ মানুষ আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে।

এমন অবস্থায় ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটন পূর্বাভাস দিয়েছে যে, অক্টোবর নাগাদ যুক্তরাষ্ট্রে করোনা ভাইরাসে মারা যেতে পারেন এক লাখ ৮০ হাজার মানুষ। তবে মার্কিনিদের যদি শতকরা ৯৫ ভাগ মাস্ক পরেন তাহলে এই সংখ্যা কমে এক লাখ ৪৬ হাজার হতে পারে।

সিডিসি কি বলেছে?
সিডিসির পরিচালক ড. রবার্ট রেডফিল্ড সাংবাদিকদের বলেছেন, এখন আমাদের সবচেয়ে উত্তম হিসাব হলো যারা আক্রান্ত হয়েছেন তাদের প্রতিজন প্রকৃতপক্ষে আরো ১০ জনকে আক্রান্ত করছেন। যাদের করোনার লক্ষণ আছে তাদের পরীক্ষায় বিধিনিষেধ আছে। আবার যাদের লক্ষণ দেখা দেয় নি তাদের তো পরীক্ষাই করা হচ্ছে না। মার্চ, এপ্রিল এবং মে মাসে আমরা পরীক্ষা পদ্ধতি ব্যবহার করেছি সম্ভবত শতকরা ১০ ভাগ মানুষের ক্ষেত্রে। তিনি আরো বলেন, জনগণের শতকরা ৫ থেকে ৮ ভাগের ক্ষেত্রে এই ভাইরাস দৃশ্যমান হয়েছে। তাই তিনি মার্কিনিদের সামাজিক দূরত্ব রক্ষা করতে, মুখে মাস্ক পরতে এবং হাত ধোয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

টেক্সাস পরিস্থিতি
এই রাজ্যে লকডাউন শেষ হয়ে এসেছিল। কিন্তু নতুন হাজার হাজার মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন। ফলে রাজ্যের গভর্নর গ্রেগ অ্যাবোট অস্থায়ী সময়ের জন্য সব কিছু খুলে দেয়া স্থগিত করার ডাক দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার এ রাজ্যে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৯৯৬ জন। এ দিন মারা গেছেন ৪৭ জন। এক মাসের মধ্যে একদিনে এটাই সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড। একটানা ১৩ দিন ধরে রেকর্ড পরিমাণ মানুষের হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়ার প্রয়োজন হয়েছে। তাৎক্ষণিক প্রয়োজন নয় এমন অপারেশন স্থগিত করা হয়েছে হিউজটন, ডালাস, অস্টিন ও সান অ্যান্টোনিওতে।

গত সপ্তাহে যত মানুষের পরীক্ষা করা হয়েছে তার মধ্যে শতকরা ১০ ভাগের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। এ রাজ্যের ১২টি বাদে ২৫৪ টি কাউন্টি বা এলাকায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঘটেছে। এ সপ্তাহে একদিনে রেকর্ড পরিমাণ আক্রান্ত হয়েছেন আলাবামা, অ্যারিজোনা, ক্যালিফোর্নিয়া, ফ্লোরিডা, ইডাহো, মিসিসিপি, মিসৌরি, নেভাদা, ওকলাহোমা, সাউথ ক্যারোলাইনা এবং উয়োমিংয়ে।
বুধবার যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন কমপক্ষে ৩৬ হাজার মানুষ। বুধবার নিউ ইয়র্ক, নিউ জার্সি এবং কানেকটিকাট বলেছে, আলাবামা, আরকানসান, অ্যারিজোনা, ফ্লোরিডা, নর্থ ক্যারোলাইনা, সাউথ ক্যারোলাইনা, টেক্সাস ও ইউটাহ থেকে এসব রাজ্যে কেউ এলে তাকে স্বেচ্ছায় ১৪দিন আইসোলেশনে থাকতে হবে। বুধবার ক্যালিফোর্নিয়াতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৭১৪৯ জন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here